যে কারণে বাতিল হলো এশিয়া কাপ
ছবি: সংগৃহীত

টেকভয়েস২৪ ডেস্ক :: এবারের এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী। তবে আয়োজক পাকিস্তান কিংবা ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির সিদ্ধান্তের আগেই সৌরভ এ সিদ্ধান্ত জানানোয় বিতর্ক শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, ৮ জুলাই সৌরভের ৪৮তম জন্মদিন। এ উপলক্ষে তার এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার ছাপিয়েছে কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা। সেখানে তার কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিল-বিদেশে ফুটবল শুরু হয়েছে, ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট শুরু হচ্ছে বুধবার থেকে। কবে নাগাদ বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মাদের ফের মাঠে দেখা যেতে পারে? এশিয়া কাপে?

জবাবে তিনি বলেছেন, এশিয়া কাপ বাতিল হয়ে গিয়েছে। এবারে আর হচ্ছে না। আমরা আইসিসির সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছি। দেখা যাক, কবে ওরা চূড়ান্ত ঘোষণা করে। তারপরে আইপিএল নিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। আমরা মাথায় রাখছি, যদি অক্টোবর-নভেম্বরের দিকে পরিস্থিতির উন্নতি হলে আইপিএল করা যায়। এই মুহূর্তে তার আগে ক্রিকেট শুরু হওয়ার সম্ভাবনা দেখছি না।

সাক্ষাৎকারে আরো অনেক কথাই বলেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি। মেলবোর্নে নতুন করে লকডাউন শুরু হয়েছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তাতে আরও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

এ প্রসঙ্গে সৌরভ বলেছেন, টুর্নামেন্ট করার পরিকল্পনা থাকলে মেলবোর্নকে ছাড়াই করতে পারে আইসিসি। বিশ্বকাপ হবে কিনা, তা পুরোপুরি আইসিসির সিদ্ধান্ত।

তিনি আরো বলেছেন, আইসিসি হয়তো চেষ্টা করছে, সব দিক ভালোভাবে দেখে নিতে যে, বিশ্বকাপ আয়োজনের আর কোনও সম্ভাবনা আছে কিনা। বিশ্বকাপ থেকে হওয়া মুনাফা থেকে সব দেশকে আর্থিক অনুদানও দেওয়া হয়। তা থেকে ক্রিকেট উন্নয়নের অনেক কাজ হয়। নানা দিক নিয়ে ভাবতে হচ্ছে। তাই হয়তো আইসিসি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে উঠতে পারেনি।

প্রশ্ন ছিল আইপিএল নিয়েও। যদি আইপিএল হয়, তাহলে সেটি বিদেশে হবে কিনা এমন প্রশ্নে ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক বলেছেন, হ্যাঁ, হতে পারে। আমরা চেষ্টা করছি, দেশেই করার। আবারও বলছি, সেটা সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করবে দেশের পরিস্থিতির ওপর। অক্টোবর-নভেম্বরে যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ না হয় এবং আমাদের দেশের পরিস্থিতি অনেকটা উন্নতি হয়, তাহলে দেশেই আইপিএল করার কথা ভাবা যেতে পারে।

সেক্ষেত্রে বিদেশে হলে সম্ভাব্য বিকল্পের কথাও বলেছেন বিসিসিআই সভাপতি, শ্রীলঙ্কা আর দুবাই নিয়ে কথাবার্তা চলছে। তবে আমাদের প্রথম পছন্দ অবশ্যই নিজেদের দেশে করা। যদি পরিস্থিতির উন্নতি হয় তবেই তা সম্ভব। আইপিএলে যে আটটা শহরের দল খেলে, তার মধ্যে পাঁচটা শহরেই করোনার প্রকোপ সাংঘাতিক। সেটাও মাথায় রাখতে হবে।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...