আত্মবিশ্বাস থাকলে ই-কমার্সে ভালো করা সম্ভব

টেকভয়েস২৪ রিপোর্ট :: ই-কমার্স ইন্ডাস্ট্রিতে অনলাইন ব্যবসার ধারণাকে বদলে দিয়েছে দেশীয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ইভ্যালি। ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপোর প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত ‘জার্নি অব ফাউন্ডিং ইওর ওউন ভেঞ্চার’ শীর্ষক সেমিনারে অংশ নিয়ে ইভ্যালির যাত্রা শুরুর গল্প শোনান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ রাসেল।

তিনি বলেন, যারা ম্যানুফ্যাকচারিং করেন তাদের পণ্য ডিস্ট্রিবিউশন করতে গিয়ে অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয় এবং প্রচুর অর্থ ব্যয় হয়। এ ডিস্ট্রিবিউশনটাকে যদি সহজ করা যায় তাহলে পণ্যের দাম কমে আসবে এবং গ্রাহক লাভবান হবে। এমন চিন্তা থেকেই ইভ্যালির যাত্রা শুরু। ইভ্যালির এখন প্রতিমাসে ৬ থেকে ৭ লাখ ইউনিক অর্ডার হয়ে থাকে। কাজ করছে ১১০০ কর্মী।

সেমিনারে নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য পথ বাতলে দেন ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তিনি বলেন, নতুন উদ্যোক্তাদের শুরুতেই সম্পূর্ণ পোর্টফোলিও নিয়ে হয়তো আগানো সম্ভব হবে না। যদি নিজের মধ্যে আত্মবিশ্বাস থাকে তাহলে এ সেক্টরে ভালো করা সম্ভব। স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠাতাদের জন্য পুরো জার্নিটায় একটা গেম, যেখানে উদ্যোক্তাকে প্রতিনিয়ত ম্যাথমেটিক্যাল অ্যানালাইসিস করে এগোতে হবে।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন ডাটাসফটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব জামান, পাঠাও এর সিইও হুসেইন এম ইলিয়াস ও লাইট ক্যাসেল সিইও বিজন ইসলাম প্রমুখ।

‘মেক হেয়ার, সেল এভরিহোয়ার’স্লোগানে বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) রাজধানীর বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ অডিটোরিয়ামে দ্বিতীয়বারের মতো শুরু হয় দেশের সবচেয়ে বড় তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনী ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো-২০২১’।

তথ্যপ্রযুক্তি সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ ও বাণিজ্যবান্ধব পরিবেশ তৈরি, তরুণদের অংশগ্র্রহণ বাড়ানো, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পথ ও উদ্যোক্তা তৈরি করতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনীর এই আসর।

এবারের আসরটি যৌথভাবে আয়োজন করছে আইসিটি বিভাগ, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস)।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...