শপিং মলে করোনা সংক্রমণ রোধে তৈরি হলো সফটয়্যার
ছবি: সংগৃহীত

টেকভয়েস২৪ ডেস্ক :: করোনার সংক্রমণ এড়াতে দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ থাকা দোকানপাট ও শপিং মলগুলো শর্ত সাপেক্ষে গত ১০ এপ্রিল থেকে খুলে দেয়া হয়েছে।

এই বিষয়ে গত ৫ এপ্রিল বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে শপিং মলগুলো সম্পর্কে একটি নির্দেশনা দেয়া হয়।

সেখানে বলা হয়, প্রত্যেকটি শপিং মলের নিজস্ব অ্যাপ থাকতে হবে, যার মাধ্যমে ক্রেতারা শপিং করতে আসার আগে নিবন্ধনের মাধ্যমে পাস সংগ্রহ করবেন এবং প্রবেশ মুখেই তা দেখাতে হবে।

শপিং মলগুলোতে করোনার স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তা সৃষ্টি করতে এই ধরনের ফিচার সম্বলিত অ্যাপ তৈরি করেছে দেশীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এমসিসি লি.।

অ্যাপটি প্রধান ফিচার হচ্ছে, ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড়ের পরিস্থিতি এড়াতে একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক ক্রেতাকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য অনুমতি প্রদান করা। পরীক্ষামূলকভাবে চালু হওয়া এই অ্যাপটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন বাংলাদেশের যেকোন শপিং মল কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে এমসিসি লি-এর প্রধান প্রকৌশলী আশিকুজ্জামান জানান যে, লকডাউন পরিস্থিতিতে দোকান-মালিক বা শপিং সেন্টার কর্তৃপক্ষ যেন সহজেই তাদের উপযোগী সল্যুশন খুঁজে পান, সেকারণেই আমরা দ্রুত এটি তৈরি করেছি।

কিভাবে কাজ করে এই অ্যাপ
এটি একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন। এই সফটওয়্যার ব্যবহার করতে কোন ধরনের কারিগরী জ্ঞানের প্রয়োজন নেই। ক্রেতারা একটি নির্দিষ্ট সাইটে ঢুকে শপিং পাশের আবেদন করবেন। শপিংয়ের জন্য নির্দিষ্ট তারিখ ও সময় উল্লেখ করবেন। মল কর্তৃপক্ষ প্রত্যেকটি আবেদনকে যাচাই বাছাই করে অনুমোদন দেবেন।

এটি ম্যানুয়াল বা স্বয়ংক্রিয় দুই পদ্ধতেই করা সম্ভব। অনুমতি প্রদানের সাথে সাথে ক্রেতার মোবাইল নাম্বারে একটি ভেরিফিকেশান কোড ও একটি কিউআর কোড চলে যাবে। যেটা প্রবেশ পথের মুখে যাচাই করা সম্ভব হবে।

যেভাবে সেবা পাওয়া যাবে অ্যাপটিতে
অ্যাপটি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে ও ডেমো দেখতে যেতে হবে এই লিংকে। তবে আগ্রহী শপিং মল কর্তৃপক্ষ এই সাইটের নিচের লিঙ্ক থেকে নিবন্ধন করেন, তাহলে এমসিসি লি. এর টেকনিক্যাল টিমের পক্ষ থেকে তাদের সাথে যোগাযোগ করা হবে এবং সিস্টেমে ইন্সটল করাসহ অন্যান্য কারিগরী সেবা দেয়া হবে। যদি কোন ধরনের কাস্টমাইজ করার প্রয়োজন হয়, সেটাও আলোচনা সাপেক্ষে করা হবে।

তবে শুধু শপিং মল নয়, যে কোন প্রতিষ্ঠান, যেখানে অনেক মানুষের সমাগম ঘটে থাকে, তারা প্রত্যেকেই এই ধরনের সল্যুসন ব্যবহার করতে পারবেন।

সফটওয়ারটি যে কেউ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন। ।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...