কে এই মইনুল আহসান নোবেল?
ছবি: সংগৃহীত

টেকভয়েস২৪ ডেস্ক :: রেজওয়ানা বন্যা চৌধুরী, রুনা লায়লা থেকে আয়ুব বাচ্চু, জেমস… বাংলার সঙ্গীত জগতে একাধিক তারকাকে উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ।

আর সেই সঙ্গীত ঘরানার এই প্রজন্মের আরও এক উঠতি নক্ষত্র ক্রমেই জনপ্রিয়তা পেয়ে চলেছেন পদ্মার এপারে! মইনুল আহসান নোবেল।

>>আরো পড়ুন: ক্ষমা চাইলেন নোবেল

টেলিভিশনের বিখ্যাত শো ‘সা রে গা মা পা’-র মঞ্চে যিনি অবাক করে দিয়েছেন সকলকে। জেনে নেওয়া যাক তাঁর সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য।

>> আরো পড়ুন: নোবেলের জন্য ভারতে অপেক্ষা গ্রেফতারি পরোয়ানা 

জন্ম ও বেড়ে ওঠা
বাংলাদেশের গোপালগঞ্জের নোবেল পরিবারের বড় ছেলে। বাবা পেশাগতভাবে ব্যবসায়ী। নোবেল বলেন, যখন থেকে ছোট্ট ছোট্ট আঙুলে তিনি কড় গুনতে শিখেছেন, তখন থেকেই শুরু হয়েছে তাঁর সঙ্গীত চর্চা। নিঃসহন্দেহে তা অবাক করার মত ঘটনা।

>> আরো পড়ুন : পুলিশের সাইবার ইউনিটের নজরে সারেগামাপার নোবেল

পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে যোগ
ছোটবেলা থেকেই নোবেলকে ঢাকা, খুলনা, গোপালগঞ্জের বিভিন্ন স্কুলে ভর্তি করা হয়েছ। এক একটি ক্লাসে এক একটি নতুন স্কুল। শেষে একদিন মারামারি করে স্কুল থেকে টিসি নিয়ে বিদায় নিতে হয় তাঁকে! এরপর পদ্মা পেরিয়ে পশ্চিমবঙ্গ। দার্জিলিং এর কার্শিয়াংএ সেখানে হিমালি বোর্ডিং স্কুলে ক্লাস নাইনে ভর্তি হন নোবেল।

এরপর কলকাতায় নোবেল
ক্লাস নাইনে একাধিকবার পড়ার পর, আর পাহাড়ি স্কুল ভালো লাগেনি নোবেলের। শেষে কলকাতার হাজরার একটি স্কুলে তাঁকে ভর্তি করা হয়। আর সেই সময় গিটার কেনা প্রথম। বন্দুদের সাহায্যে শুরু হল গানের চর্চা।

বাবার সঙ্গে অভিমান
২০১৪ সালে কলকাতায় পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে দেশে ফিরতেই নোবেল জানিয়ে দেন বাড়িতে যে তিনি সঙ্গীত চর্চা নিয়েই এগোতে চান। বাধ সাধেন তাঁর বাবা-মা। এদিকে নোবেলের জদে চেপে বসে তাঁর গুরু ‘জেমস’ হওয়ার লক্ষ্যে। বাড়িতে সাফ জানিয়ে দেন চাকরি তিনি করবেন না। বলেন, জেমস না হতে পারি, নোবেল হব।

কোনও প্রশিক্ষণ ছাড়াই গান-প্রেম
এরপর কারোর কোনও কথাই কানে নেননি নোবেল। গানের ব্যান্ডে তখন শ্রোতাদের মাত করতে শুরু করেন তিনি। তাঁর গাওয়া ‘বাবা’ গানটি হিট হয় রাতারাতি। তারপরই কলকাতায় ‘সা রে গা মা পা’ এর টিকিট! ব্যাস, সফর এগোতে থাকে সাফল্যের দিকে…।

‘সারেগামাপা’ মঞ্চে রানার্স-আপ
বাংলা গানের সবচেয়ে জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো জি বাংলার ‘সা রে গা মা পা’। সীমানার এপাড়-ওপাড় দুই বাংলার উদীয়মান সঙ্গীতশিল্পীদের সবচেয়ে বড় আসর এটি। অনুষ্ঠানটির গ্র্যান্ড ফাইনাল পর্ব প্রচারিত হয় গত বছরের ২৮ জুলাই। মাঈনুল আহসান নোবেল চূড়ান্ত পর্বে দ্বিতীয় রানার্স-আপ হয়েছেন।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...