প্রভু, আমি কি জেগে জেগে স্বপ্ন দেখছি?

টেকভয়েস২৪ ডেস্ক :: পত্রিকার পাতায় কত বিজ্ঞাপনই তো ছাপা হয়! সব কি আর সবাই দেখে? যার যেটা প্রয়োজন সেটাই সে দেখে। আমার কোনোটাতেই প্রয়োজন নেই, তাই কোনোটাই আমার দেখা হয়ে ওঠে না।

তবুও অবাধ্য চোখ অনেক সময় কোনো-কোনোটি দেখে ফেলে। যেমন দেখেছে ২ ডিসেম্বরের পত্রিকায় একটি বিজ্ঞাপন। বিজ্ঞাপনটি দিয়েছে বিটিসিএল। চিনতে পারছেন না? সেই বিখ্যাত টিঅ্যান্ডটি, যারা একসময় ছিল টেলিফোনের একচ্ছত্র অধিপতি।

বিজ্ঞাপনের বক্তব্য পড়ে আমি অচৈতন্যি। বলা হচ্ছে, ‘এখন থেকে সারা দেশে বিটিসিএল-এর ল্যান্ডফোন সংযোগ গ্রহণ করুন বিনামূল্যে।’ শুধু তা-ই নয়, লেখা হয়েছে, `১৫০ টাকায় সারা মাস আনলিমিটেড কথা বলুন।’

‘বিনামূল্যে ল্যান্ডফোন সংযোগ’ আবার ‘১৫০ টাকায় সারা মাস আনলিমিটেড কথা’! প্রভু, আমি কি জেগে জেগে স্বপ্ন দেখছি? নইলে এটা কিভাবে সম্ভব?

যে টিঅ্যান্ডটির ফোন পেতে একসময় ২৫,০০০ টাকা নগদ জমা দিতে হতো, তার বাইরে আরো কত যে দিতে হতো। তা-ও কি সহজে মিলতো! মনে পড়ে, একবার ইত্তেফাক-এর প্রথম পৃষ্ঠায় খবর ছাপা হলো, পুরনো ঢাকার এক ভদ্রলোক আবেদনের ২৫ বছর পরও টেলিফোন সংযোগ পাননি।

খবরটি ছাপার পর কুম্ভকর্ণ টিঅ্যান্ডটির নিদ্রাভঙ্গ হয়। ভদ্রলোকের বাসায় রাতারাতি লাইন দেয়া হয়। কিন্তু তাঁর তখন আর টেলিফোনের তেমন দরকার নেই। রিটায়ার করেছেন, কী হবে আর টেলিফোন দিয়ে!

এই ছিল সেদিনের টিঅ্যান্ডটি।

শুধু সংযোগ পাওয়াতেই নয়, পেয়েও দুর্ভোগের শেষ থাকতো না। ভুতুড়ে বিল, লাইনম্যানের দৌরাত্ম্য – আরো কত কাহিনী।

টিঅ্যান্ডটি তখন পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে গ্রাহকদের নসিহত করতো, টেলিফোনে কথা কম বলুন, অন্যকে সুযোগ দিন।

সেই ‌‘মহান’ সংস্থার উত্তরসূরী সংস্থা আজ যখন বলে, ‘এখন থেকে সারা দেশে বিটিসিএল-এর ল্যান্ডফোন সংযোগ গ্রহণ করুন বিনামূল্যে। ১৫০ টাকায় সারা মাস আনলিমিটেড কথা বলুন।’

তখন দীর্ঘশ্বাস ফেলে ভাবি, প্রভু, তোমার ক্ষমতা অপরিসীম। নইলে এমন প্রতাপশালীকে তুমি ধুলোয় গড়াগড়ি খাওয়াও!

(হুমায়ুন সাদেক চৌধুরী-এর ফেসবুক পেজ থেকে. . .)

লেখক : শিশুসাহিত্যিক ও সাংবাদিক

 

 

টেকভয়েস২৪/পিবি