প্রযুক্তিতে প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার না করায় বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি
ছবি: সংগৃহীত

টেকভয়েস২৪ রিপোর্ট :: প্রাকৃতিক সম্পদ প্রযুক্তিতে ব্যবহার না করতে পারায় বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি। কৃত্রিম উপায়ে বিটিএস নির্মাণ করে টেলিযোগাযোগ সেবা দেয়ায় উচ্চ মাত্রার ছড়াচ্ছে তেজস্ক্রিয়তা। ছোট একটি দেশে প্রায় ৯০ হাজার বিটিএস নির্মাণ করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন বক্তারা।

তারা বলেন, অপারেটররাও খুব পরিমাণ তরঙ্গ ব্যবহার করছে। যা জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি তৈরি করছে। যদি সরকার আন্তরিক হয় এবং পর্যাপ্ত তরঙ্গ ব্যবহারে বাধ্য করতে পারে অপারেটরদের তাহলে বিটিএস অধিক পরিমাণে তৈরির প্রয়োজন হবে না। এতে করে জনস্বাস্থ্য রক্ষা পাবে।

মঙ্গলবার (১ল সেপ্টেম্বর) রাজধানীর রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে পরিবেশবাদী সংগঠন সবুজ আন্দোলনের দ্বিতীয় বর্ষ পূর্তিতে আয়োজিত ‘পরিবেশ আন্দোলনে সামাজিক সংগঠনের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনায় এসব কথা তুলে ধরেন বক্তারা।

আলোচনা সভায় জার্মানী থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হন সংগঠনের চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন মিয়া। আরো যুক্ত হন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বিবদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. কবিরুল বাশার।

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের ফিশারিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রোকনুজ্জামান।

সভাপতিত্ব করেন এড. আবু বক্কর সিদ্দিক। উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের মহাসচিব অধ্যাপক মিজানুর রহমান ও আবুল কালাম প্রমুখ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ই-বর্জ্যরে এখন পর্যন্ত কোনো নীতিমালা তৈরি করা হয়নি এবং এ নিয়ে কোনো ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হচ্ছে না। দ্রুত ই-বর্জ্যরে ব্যবস্থাপনা তৈরি না করলে প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনের সাথে সাথে ই-বর্র্জ্যরে পরিমাণও বাড়তে থাকবে। এতে করে প্রকৃতিতে বিপর্যয় নেমে আসার সম্ভাবনাই বেশি।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...