বাংলাদেশ থেকে ২৬ লাখের বেশি ভিডিও সরিয়েছে টিকটক

টেকভয়েস২৪ রিপোর্ট :: বিশ্বের নেতৃস্থানীয় শর্ট-ফর্ম ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটক ২০২১ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের (অক্টোবর-ডিসেম্বর ২০২১) সর্বশেষ কমিউনিটি গাইডলাইনস এনফোর্সমেন্ট রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। রিপোর্টটিতে কমিউনিটির সুরক্ষাকে সমর্থন করার প্রতিশ্রুতি এবং প্ল্যাটফর্মে উৎহিত করার প্রতিশ্রুতির আপডেটগুলো যুক্ত করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে প্ল্যাটফর্মটির গাইডলাইন লঙ্ঘন করা কনটেন্ট শনাক্ত, ফ্ল্যাগিং এবং অপসারণ করার সময় সিস্টেমের চলমান উন্নতি সম্পর্কেও তথ্য সরবরাহ করা হয়। ২০২১ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে বিশ্বব্যাপী ৮ কোটি ৫৭ লাখ ৯৪ হাজার ২২২টি ভিডিও অপসারণ করা হয়েছে, যা টিকটকে এ সময়ের মধ্যে আপলোড করা ভিডিওর প্রায় ১ শতাংশ। প্রায় ৯৪ দশমিক ১ শতাংশ ভিডিও কমিউনিটি গাইডলাইন লঙ্ঘনের জন্য পোস্ট করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মুছে ফেলা হয়েছে, কোনো ব্যবহারকারী রিপোর্ট করার আগেই সরানো সম্ভব হয়েছে ৯৫ দশমিক ২ শতাংশ এবং ৯০ দশমিক ১ শতাংশ ভিডিও কোনো ভিউ পাওয়ার আগে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

কমিউনিটি গাইডলাইন লঙ্ঘনের অভিযোগে বাংলাদেশ থেকে এই সময়ে ভিডিও সরানো হয়েছে ২৬ লাখ ৩৬ হাজার ৩৭২টি। ২০২১ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ভিডিও সরানো হয়েছে বাংলাদেশ থেকে, যা বিশ্বে সপ্তম।

এ রকম উন্নয়ন হয়রানি এবং অন্যান্য নেতিবাচক আচরণ মোকাবিলায় খুব সহায়তা করছে। রিপোর্টে বলা হয়, ওই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে থেকে সরানো কনটেন্টের মধ্যে হয়রানি এবং বুলিং কনটেন্ট সরানো হয়েছে ১৪.৭ শতাংশ, ঘৃণ্য আচরণের জন্য ১০.১ শতাংশ, সহিংস চরমপন্থার জন্য ১৬.২ শতাংশ এবং বিপজ্জনক কাজের জন্য ৭.৭ শতাংশ কনটেন্ট অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে। এমন কনটেন্ট যেখানে একটি ভিউ হওয়ারও সুযোগ পায়নি। এত দ্রুত কনটেন্ট সরিয়ে ফেলা একটি অসাধারণ অগ্রগতি।

টিকটকের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা বিশ্বাস করি, শ্রদ্ধা, দয়া ও সহনশীলতার ভিত্তিতে টিকটকে আমাদের কমিউনিটি গড়ে তোলা উচিত। আমাদের নিয়মের সাথে সামঞ্জস্য রেখে মানুষকে ইতিবাচক ডিজিটাল সংযোগ তৈরিতে সহায়তার জন্য আমরা বদ্ধ পরিকর। আমরা চাই আমাদের ব্যবহারকারী নিজেদের মধ্যে সদাচার ও সম্প্রীতি বজায় রাখুক। মানুষকে নিরাপদ রাখার ক্ষেত্রে নিয়মের তো কোনো শেষ নেই। আমাদের সর্বশেষ প্রতিবেদন এবং প্রতিনিয়ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার অগ্রগতি এটাই দেখায় যে, আমরা কমিউনিটির কল্যাণের প্রতি সদা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

কমিউনিটি গাইডলাইন লঙ্ঘন করে এমন অপমানজনক এবং ঘৃণ্য কনটেন্ট বা আচরণকে সক্রিয়ভাবে অপসারণ করার জন্য প্ল্যাটফর্মের কাজের পাশাপাশি নতুন উপায়ে ব্যবহারকারীরা তাদের কমেন্টের উপর আরও নিয়ন্ত্রণের সহায়তা পাচ্ছে। ব্যবহাকারীরা অপ্রাসঙ্গিক বা অনুপযুক্ত বলে মনে করে এমন মন্তব্য শনাক্ত করতে পারে, যেমন-কোনো কমেন্টে ডিজলাইক দেয়ার মাধ্যমে তারা ফিডব্যাক দিতে পারবে। এমন কমেন্টগুলো সংগ্রহ করা হয়। এরপর কমেন্ট সেকশন প্রতিনিয়ত প্রাসঙ্গিক রাখার যে ফ্যাক্টরগুলো আছে তার সাথে নতুন ফিডব্যাক যোগ হয়। তবে কনটেন্ট নির্মাতারা যেনো ডিজলাইক দেখে হতাশ না হয়ে পড়েন, সে জন্য ডিজলাইক দেয়া ব্যক্তিই কেবলমাত্র নিজের ডিজলাইক দেখতে পারবেন। এটি নির্মাতাদের চোখের সামনে আসবে না।

বিল্ট-ইন সেফটি টুলগুলো ব্যবহার করে টিকটক সেফটি রিমাইন্ডার পরীক্ষা করছে যা নির্মাতাদের মন্তব্য ফিল্টারিং এবং বাল্ক ব্লক এবং অপশন ডিলেট ইত্যাদিতে গাইড করবে। রিমাইন্ডারগুলো এমন নির্মাতাদের কাছে দেখাবে যাদের ভিডিওগুলো আনুপাতিক হারে বেশি নেতিবাচক কমেন্ট পাবে। পাশাপাশি প্ল্যাটফর্মটি স্ট্রিক্ট কমিউনিটি গাইডলাইন লঙ্ঘন করে এমন কমেন্ট অপসারণ করা অব্যাহত রাখবে। সাথে কনটেন্ট ফিল্টার করার ক্ষমতা এবং একবারে একাধিক কমেন্ট মুছে ফেলা এবং রিপোর্ট করার ক্ষমতা তো রয়েছেই।

টিকটকে কমিউনিটি গাইডলাইন এবং গাইডলাইন সম্বন্ধে জানতে, কমিউনিটি গাইডলাইন্স দেখুন। কমিউনিটি গাইডলাইনস এনফোর্সমেন্ট রিপোর্ট এখানে ইংরেজি এবং বাংলায় পাওয়া যাবে।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...