বাঙালির ডিএনএতে আছে উদ্যোক্তা হওয়ার উপাদান
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

টেকভয়েস২৪ রিপোর্ট :: বাঙালির ডিএনএতে আছে উদ্যোক্তা হওয়ার উপাদান আছে বলেই গ্রামের মা-বোনেরা ঘরে তৈরি এক বয়াম আচার অনলাইনে বিক্রি শুরু করেছে। অপরদিকে শহরের তরুণ উদ্যোক্তারা ক্লাউড কম্পিউটিং,আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স, ব্লকচেইনের মতো প্রযুক্তি নিয়ে নতুন নতুন উদ্যোগ নিয়ে আসছে।

রবিবার ফাউন্ডার্স ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ আয়োজিত ভিআইপি লঞ্চ মিকচার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

ফাউন্ডার্স ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সিইও বিজন ইসলামের সভাপতিত্বে চতুর্থ বারের মতো আয়োজিত এই স্টার্টআপ এক্সিলারেটরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বেটার স্টোরিজের চিফ স্টোরি টেলার মিনহাজ আনোয়ার।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন ইউল্যাবের সহযোগী অধ্যাপক এবং সেন্টার ফর এন্টারপ্রাইজ অ্যান্ড সোসাইটি পরিচালক সাজিত অমিত, পাঠাও সিইও হুসাইন ইলিয়াস, সহজ সিইও মালিহা কাদির, প্রাভা হেলথ সিইও সিলভানা কাদের সিনহা, সেলিমা অ্যালেন, খোবাইব চৌধুরী, কাজী মাহবুব হাসান, টিনা জাবীন এবং আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানে প্রি-সিড স্টেজে নির্বাচিত উদ্যোগ এগ্রি ৪.০, বেঞ্জ অটোক্লিনিক, ডাক্তার বন্ধু, ট্রাভেল এক্সপার্ট, আসবাব এক্সওয়াইজেড, আই গার্ড, বাণিজ্য ডটকম, লাগ ভেলকি প্রতিষ্ঠাতারা তাদের উদ্যোগগুলোর সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরেন।

নির্বাচিত কোহোর্টের মধ্য থেকে প্রভাবক উদ্যোক্তা হিসেবে “প্রাভাহেলথ ইম্প্যাক্ট ফেলোশিপ” নির্বাচিত হন “ভরসা” এর উদ্যোক্তা তাসনিম শাহ।

দেশে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়ে তুলতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে পলক বলেন, মাধ্যমিক পর্যায় থেকেই শিক্ষার্থীরা যেন শুধুমাত্র পাঠ্য পুস্তকের মাঝে সীমাবদ্ধ না থাকে সে জন্য স্কুল অব ফিউচার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন এর মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম ডিজরাপটিভ টেকনোলজি বিষয়ে হাতে কলমে শিক্ষা নিয়ে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের নেতৃত্ব দিতে পারবে।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...