বাজেট বাস্তবায়নের পূর্বে আদায়কৃত অর্থ ফেরত চেয়ে বিটিআরসিকে মেইল
ছবি: সংগৃহীত

টেকভয়েস২৪ ডেস্ক :: গত ৫ অর্থবছরে বাজেট বাস্তবায়নের পূর্বে মোবাইল অপারেটরগুলো গ্রাহকদের কাছে যে অর্থ আদায় করেছে তা ‘অনৈতিক’ উল্লেখ করে আদায়কৃত অর্থ ফেরতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিটিআরসির চেয়ারম্যান বরাবর ই-মেইল দিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন।

সোমবার (১৫ জুন) দুপুরে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আবু বকর ছিদ্দিক স্বাক্ষরিত মেইলটির অনুলিপি অর্থমন্ত্রণালয় ও ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়েও দেয়া হয়েছে।

>> আরো পড়ুন: কলরেট বাড়ানোর কারণ জানতে চেয়েছে বিটিআরসি

মেইলে বলা হয়েছে, গত ১১ জুন মহান জাতীয় সংসদে ২০২১ অথবছরের বাজেট উপস্থাপন করা হয়। ২০১৪-১৫ অর্থ বছর থেকে টেলিযোগাযোগ খাতে দফায় দফায় কর বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং সব চাইতে লক্ষণীয় বিষয়, বাজেট উপস্থাপনের দিবাগত রাত হতেই মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো প্রস্তাবকৃত শুল্ক গ্রাহকদের কাছে আদায় করতে শুরু করেছে।

ওই  মেইলে আরো বলা হয়েছে, আমরা সাধারণত জানি, বাজেট উপস্থাপনের পর আলোচনা ও সংযোজন-বিয়োজনের পর ৩০ জুন মহান পাশ হওয়ার পর ১ জুলাই হতে তা কার্যকর হয়। বিগত কয়েক বছর যাবত এ বিষয়টি নিয়ে আমরা বিভিন্ন ধরণের আন্দোলন সংগ্রাম করেও আপনাদের বা সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারি নাই।

 গত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটেও ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধি করা হয়। যার প্রতিবাদে ১৭ জুন ২০১৯ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন ও ২৫ জুন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর করে আমরা বাজেট উপস্থাপনের দিন হতেই অপারেটরদের অতিরিক্ত কর আদায়ের বিষয়টি অবগত করেছিলাম। কিন্তু দুঃখের বিষয় এ নিয়ে কমিশনের কোন প্রতিক্রিয়া আমরা লক্ষ্য করি নাই।

চলতি বাজেট উপস্থাপনের পর অপারেটররা একই কায়দায় গ্রাহকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় শুরু করে। অবশেষে গতকাল কমিশন অপারেটরদেরকে চিঠি দিয়ে জানতে চেয়েছে, অতিরিক্ত অর্থ কেন আদায় করা হচ্ছে? আমরা এজন্য কমিশনকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

আমাদের দাবি গত ৫ বছর ও চলতি মাসে গ্রাহকদের কাছ থেকে বাজেট পাশের পূর্বে যে অর্থ আদায় করা হয়েছে তা গ্রাহকদের ফেরত প্রদান করা হোক।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...