ব্ল্যাক আউট চ্যালেঞ্জে তরুণীর মৃত্যু হচ্ছে কি-না তদন্তের দাবি

টেকভয়েস২৪ রিপোর্ট:: ব্ল্যাক আউট চ্যালেঞ্জের প্ররোচনায় টিকটক করতে গিয়ে বাংলাদেশের তরুণ-তরুণীরা মৃত্যুর মুখে পড়ছে কি-না তা তদন্তের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন।

মঙ্গলবার (১২ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা দীর্ঘদিন যাবৎ দাবি করে আসছিলাম টিকটককে নিয়ন্ত্রণ ও জবাবদিহিতার মধ্যে আনার। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে মহামান্য হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করা হয়েছে। কিন্তু কোন কিছুতেই টিকটককে জবাবদিহিতার আওতায় ও নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না কেন তা আমাদের কাছে বোধগম্য নয়। টিকটক-এর ভিডিও মেকিং প্লাটফর্মে ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ। রয়েছে বলে বিভিন্ন দেশেও প্রচুর অভিযোগ রয়েছে। ইতিমধ্যে ইতালি, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রিয়া, ওকলাহুমা ও পেন্সিলভানিয়াতে ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ-এর কারণে করুণ ধরনের মৃত্যু হয়েছে বলে অনেক তরুণ-তরুণী ও অভিভাবক টিকটক-এর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

তিনি আরো বলেন, গত কয়েক বছর যাবত চীনা শর্ট ভিডিও মেকিং প্লাটফর্ম টিক টক-এর অপব্যবহার এতটা বেড়েছে যে বর্তমান প্রজন্মের তরুণ তরুণীদের মধ্যে মৃত্যু ফাঁদ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ-এর অন্যতম মাধ্যম টিকটক। সাম্প্রতিক সময়ে ৮ জুলাই নোয়াখালীর চাটখিলে টিকটক ভিডিও বানানোর সময় অসাবধানতাবশত পা পিছলে গেলে সানজিদা আক্তার নামে (১১) বছর বয়সী এক কিশোরীর মৃত্যু হয়। গতকাল কুমিল্লার চলন্ত ট্রেনের ছাদে টিক টক করতে গিয়ে পা পিছলে মেহেদী হাসান বয়স ১৫ এক কিশোরের মৃত্যু হয়। এছাড়া টিকটককে কেন্দ্র করে ২০১৯ সালের মার্চ মাসে টিক টক ভিডিও আপলোডকে কেন্দ্র করে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আরাফাত খুন হয়।

সংগঠনটির সভাপতি বলেন, গত বছরের জুন মাসে টিকটকের ফাঁদে ফেলে এক তরুণীকেও ধর্ষণ করা হয়। তাছাড়া পাড়া মহল্লায় কিশোর গ্যাং গড়ে উঠেছে তার পিছনে টিকটকের ভূমিকাকে অগ্রপণ্য হিসেবে দেখা হয়।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের মোবাইল অপারেটরদের জনসচেতনতা তৈরিতে নিষ্ক্রিয়তা এবং নিয়ন্ত্রক কমিশনের কোন উদ্যোগ গ্রহণ না করায় দিন দিন বেড়েই চলেছে টিকটক এর অপব্যবহার। আমাদের দাবি সরকারের সাইবার সিকিউরিটি নিরাপত্তা সেলের টিকটকে ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ অপশন রয়েছে কিনা তা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের।

প্রসঙ্গত, ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ হচ্ছে এমন ধরনের অপশন যেখানে তরুণ-তরুণীকে তার বেল্ট, অথবা অন্য কোন মাধ্যম ব্যবহার করে ফাঁসিতে ঝুলতে বা আত্মহত্যা করতে প্ররোচনা দেয়।

image_printপোস্টটি প্রিন্ট করতে ক্লিক করুন...